তারিখ : ৩০ মে ২০২০, শনিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকায় বেতন না দিয়ে লে-অফ ঘোষণা,শ্রমিকদের বিক্ষোভ

করোনা দোহাই দিয়ে
ভালুকায় লুপডট ফ্যাশন বেতন না দিয়ে লে-অফ ঘোষণা,শ্রমিকদের বিক্ষোভ
[ভালুকা ডট কম : ০৫ এপ্রিল]
ভালুকা উপজেলার বাশিল গ্রামে অবস্থিত লুপডট ফ্যাশন লিঃ গত মাসের শ্রমিকদের বেতন না দিয়ে লে-অফ ঘোষণা দেয়ায় রোববার সকাল থেকে মিলের সামনে বিক্ষোভ প্রর্দশন শুরু করে। এ সময় শিল্প পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

জানাযায়,করোনার কারণে বিজিএমই কর্তৃক ঘোষিত শর্ত স্বাপেক্ষে ছুটিকে কাজে লাগিয়ে ভালুকার লুপডট ফ্যাশন লিঃ এর মালিক আমিরুল ইসলাম শ্রমিকদের অবৈতনিক ছুটি দেয়ায় ও গত ফ্রেব্রুয়ারী মাসের বেতন না দেয়ায় রোববার সকালে থেকেই শ্রমিকরা মিল গেইটের সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন শুরু করেন। শ্রমিকরা দাবী করেন আমাদেরকে গত ২৬ফেব্রুয়ারী থেকে ৪মার্চ পর্যন্ত ছুটি দেয়ার পর রাস্তায় গণ পরিবহন না থাকায় বিকল্পভাবে কষ্ট করে চাকরি বাঁচানোর জন্য  কাজে যোগদান করতে এসে দেখি মিলের গেইট বন্ধ। মিল গেইটের সামনে এসে শ্রমিকরা জানতে পারে আগামী ১৮মার্চ পর্যন্ত মিল বন্ধ থাকবে। এ সময়  শ্রমিকদের বাড়িতে ফিরে যাওয়ার জন্য গত মাসে বেতন চাইলে মিলের মিলের অ্যাডমিন ম্যানেজার সোহাগ জানান,আমাদের বেতন বিকাশে পাঠিয়ে দেয়া হবে। এ সময় শ্রমিকরা মিল গেইটের সামনে বিক্ষোভ শুরু করে। শিল্প পুলিশ এসে মিল কর্তৃপক্ষ ও  শ্রমিকদের সাথে আলোচনা করে আগামী ১০মার্চ গত মাসের বেতন পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দিলে পরিস্থিত নিয়ন্ত্রেণে  আসে।

শ্রমিকরা আরো জনান ১০টাকা ভাড়া ১শত টাকা দিয়ে এসেছি আবার বাড়ি গেলে আগের চাইতে বেশি টাকা লাগবে এখন সড়কে ট্রাক-পিকআপও চলে না। যদি ভাড়া বাসায় থেকে যাই তাহলে দোকান ও বাসা ভাড়ার বাকী টাকা দিবো কোথায় থেকে। আমরা মালিক পক্ষের কাছে গত মাসের বেতনের টাকা চেয়ে ছিলাম। কিন্ত বেতন না দিয়ে জানান  এ মাসের ১০তারিখ বিকাশে টাকা পাঠিয়ে দিবেন। পাশাপাশি আগামী ১৮মার্চ পর্যন্ত আবার মিল বন্ধের ঘোষণা দিয়েছেন।

অপর একটি সুত্র জানায় এ সময় মিল কর্তৃপক্ষ ছুটির জন্য শ্রম আইনের ১৬ধারায় শ্রমিকদের ছুটির জন্য কোনো টাকা দিবেন না। করোনার কারণে ২৪দিন মিল ছুটি থাকবে এ জন্য শ্রমিকরা কোনো বেতন পাবে না বিষয়টি মিল কর্তৃপক্ষ সম্পুর্ণ গোপন রেখেছেন।

লুপডট ফ্যাশন লিঃ এর মালিক আমিরুল ইসলাম জানান,বর্তমানে শীপম্যান্ট বন্ধ রয়েছে। শ্রম আইনে এ ছুটির জন্য শ্রমিকরা কোনো টাকা পাবে না। আমার কাছে যদি টাকা না থাকে পুলিশ আসলেই লাভ কি। তারাপরও আমি বিজিএমই,কলকারখানা কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে যা করতে হয় ব্যবস্থা করবো।

ময়মনসিংহ বিভাগের কলকারখানার ডিআইজি জানান,বিজিএমই থেকে শর্ত স্বাপেক্ষে যে ছুটির ঘোষণা দিয়েছে। যদি কোনো মালিক এ সময় তার মিল বন্ধ রাখেন তাহলে অবশ্যই শ্রমিকদের ওই ছুটির টাকা দিতে হবে। সর্ব্বোচ্চ ৬মাস পর একজন শ্রমিক স্থানীয় শ্রমিক হিসাবে গণ্য হয়।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৬০ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই