তারিখ : ১৮ নভেম্বর ২০১৯, সোমবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকায় বসত বাড়িতে হামলা,উচ্ছ্বেদের চেষ্টা,আহত-৩

ভালুকায় বসত বাড়িতে হামলা,উচ্ছ্বেদের চেষ্টা,আহত-৩
[ভালুকা ডট কম : ২১ সেপ্টেম্বর]
ভালুকা উপজেলার হবিরবাড়ি গ্রামে স্থানীয় ভূমি খেকোরা বনের গ্রেজেটভূক্ত জমি নিরীহ মানুষের কাছে বিক্রি করে পুনঃরায় সেই জমি থেকে উচ্ছ্বেদ করে অন্য নতুন ক্রেতাদের কাছে বিক্রির জন্য বসত বাড়িতে হামলা করে স্বামী-স্ত্রীসহ তিনজনকে মারধর করে আহত করে। আহত দুইজন ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার রাতে সাড়ে ১০টার সময়।

স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, স্থানীয় বন খেকো মান্নান,বাতেনের কাছ থেকে ৪বছর পূর্বে জামালপুর জেলা সদরের বাসিন্দা শান্ত ৪শতাংশ জমি ক্রয় করেন। সেই জমিতে টিন সেট ঘর করে স্থানীয় একটি গার্মেন্ট ফ্যাক্টরিতে স্বস্ত্রীক শ্রমিকের চাকুরি করেন। মান্নান,বাতেন ও মজিবুর চক্ররা শান্তর মতো আরও ৩০ থেকে ৪০জন তাঁদের কাছ থেকে হবিরবাড়ি মৌজার ১৫৪নং দাগে ৩ থেকে ৪শতাংশ করে জমি ক্রয় করেন। সেই সব জমি বনের গ্রেজেট ভূক্ত হওয়ায় নিবন্ধন করা না চলায় তিনশত টাকার স্ট্যাম্পে খোলা দলিল করে বাড়ি ঘর করে বসবাস কর ছিল। গত কয়েক দিন পূর্বে মান্নান ও বাতেন আরও ১৫/১৬জনের কাছ থেকে ১৫৪নং দাগের জমি দেখিয়ে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেয়। সেই সব নতুন ক্রেতাদের জমি বুঝিয়ে দেয়ার জন্য ১৫৪ নং দাগের গজারি বন কেটে বাঁশ এবং টিন দিয়ে ছাপরা ঘর নির্মাণ শুরু করে। গজারি বন কাটার পরও নতুন ক্রেতাদের জমি সংকোলন না হওয়ায় কয়েক বছর পূর্বের জমি ক্রেতাদের বসত ঘর থেকে উচ্ছেরদের জন্য ঘটনার রাতে বাতেন,মান্নান, মজিবুর, শহিদ, আসাদ, মোফাজ্জল, ইসরাফিল ও কাশেমের নেতৃত্বে ১৫/২০জনের একটি সন্ত্রাসী দল দেশিয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে শান্তর বসত ঘরে হামলা করে। এতে শান্ত ,তার স্ত্রী শ্যামলী ও ইউসুফ আহত হয়। হামলার খবর পেয়ে ভালুকা মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি পাঠায়।

অভিযোগ রয়েছে মান্নান ও বাতেন বনের জমি নিবন্ধন না করে নিরীহ মানুষের কাছে জমি বিক্রি করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। বছর খানেক পর নিজেরা  উপস্থিত থেকে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে পূর্বের ক্রেতাদেরকে উচ্ছ্বেদ করে অন্য নতুন ক্রেতাদের কাছে ওই জমি বিক্রি করে।

নতুন করে এ সরকার আসার পর বনের লোকজন পুরোপুরি নিক্রিয় হয়ে পড়েছে। বনের জমি দখলের খবর পেয়েও তারা ঘটনাস্থলে যায় না। কারণ ২মাস পূর্বে  ১৫৪নং দাগে বন বিভাগের লোকজন দখলদারদের প্রতিরোধ করতে গেলে মান্নান ও বাতেন বাহিনীর  লোকজন রেঞ্জারকে হামলা করে ঘরের ভিতরে আটক করে রাখে। পুলিশ গিয়ে বনের লোকজনকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে।

বারবার বাতেনের মোবাইল নম্বরে ফোন করে তাদের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। ফোন রিসিভ করে বলে পরে কথা বলবো, বলেই ফোন কেটে দেন।

শান্ত জানান.মান্নান ও বাতেন আমাকে ভুল বুঝিয়ে নিজেদের রেকর্ডের জমি বলে টাকা নিয়ে যায়। পরে জানতে পারি সেই জমি বনের,তাই নিবন্ধন হয় না। নিবন্ধন না হওয়ার সুযোগ নিয়ে ওই জমি থেকে আমাদেরকে উচ্ছ্বেদ করে তারা অন্যত্র বিক্রির পায়তারা করছে। আমরা বিদেশী লোক আমাদের পাশে দাঁড়ানো মতো কোনো মানুষ পেলাম না। সারা দিন বিদ্যুৎ না থাকায় থানায় অভিযোগ দিতে পারিনি। বিদ্যুৎ আসলে বাড়ি লুটপাট ও মারধরের ঘটনায় মামলা করবো।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২২২ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই