তারিখ : ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, শুক্রবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

রাজধানীতে আ'লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে প্রাণ গেল ২ জনের

রাজধানীতে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে প্রাণ গেল ২ জনের
[ভালুকা ডট কম : ১০ নভেম্বর]
নির্বাচন কেন্দ্রিক সহিংসতায় আজ রাজধানীর মোহাম্মদপুরের আদাবর এলাকায় সরকারী দল আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের সময় দুই তরুণ নিহত হয়েছেন। নিহত দু’জন হলেন আরিফ ও সুজন। তাঁদের বয়স ১৮ থেকে ২০ বছরের মধ্যে। নিহত দুই তরুণের এক বন্ধু দাবি করেছেন, তাঁরা বেড়ানোর উদ্দেশে বেরিয়েছিলেন। পথে সংঘর্ষের মধ্যে পড়ে যান। বৃহস্পতিবার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর এটাই নির্বাচন কেন্দ্রীক সহিংসতায়  প্রথম প্রাণহানির ঘটনা।

জানা গেছে,আজ সকাল সাড়ে নয়টার দিকে  ঢাকা ১৩ আসনের বর্তমান এমপি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক ও ওই আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খানের কর্মী–সমর্থকদের মধ্যে এই সংঘাতের ঘটনা ঘটে। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী সাদেক খানের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করার জন্য তাঁর কর্মী সমর্থকদের গাড়িবহরসহ একটি মিছিল মোহাম্মদপুর এলাকার সুনিবিড় হাউজিংয়ের সামনে এলে নানকের সমর্থকেরা বাধা দেন। তখন দুই পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

এদিকে আজ  সকালে ধানমন্ডিতে দলের সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে মনোনয়ন ফরম বিক্রি ও জমা কার্যক্রম পরিদর্শন করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন কেউ বিদ্রোহী প্রার্থী হলে তাকে দল থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে। তিনি বলেন, কোনো কোনো আসনে  ১৪-১৫ জন প্রার্থীও আছে, কিন্তু মনোনয়ন তো দেবো একজনকে। এরপরেও যদি কেউ প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করে তাহলে এবার অপেক্ষা নয় সরাসরি বহিষ্কার করা হবে।

শনিবার (১০ নভেম্বর) সকাল ১০টায় দ্বিতীয় দিনের মতো শুরু হয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম বিক্রি ও জমা নেবার কার্যক্রম । সকাল থেকেই দেশের বিভিন্ন আসনের সম্ভাব্য প্রার্থীরা মনোনয়ন ফরম কিনতে ভিড় করেন ধানমন্ডিতে। পাশাপাশি গতকাল যারা মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন তারা অনেকেই আজ ফরম জমা দিতে এসেছেন। দলীয় সূত্রে জানা গেছে  ফরম বিক্রির প্রথম দিন গতকাল বিক্রি হয়েছে এক হাজার সাত’শ মনোনয়ন ফরম। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী নির্বাচন অফিসে মনোনয়নপত্র দাখিল করা যাবে ১৯ নভেম্বর, যাচাই বাছাই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে ২২ নভেম্বর এবং প্রত্যাহারের শেষ সময় ২৯ নভেম্বর।

ওদিকে সরকারের শরীক জাতীয় পার্টি কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের আজ জানিয়েছেন,  তারা এবারও মহাজোট গঠন করে আওয়ামী লীগের সঙ্গে নির্বাচন করবে।  আজ শনিবার দুপুরে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের বনানী অফিসে গণতন্ত্র দিবস উপলক্ষে  আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা জানান।

জাপার কো-চেয়ারম্যান বলেন,কোনো তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনেই জাতীয় পার্টি লেভেল প্লেইং ফিল্ড পায়নি। তাই আমরা নির্বাচিত সরকারের অধীনেই নির্বাচন চাই। যদি এখানে বিএনপি আসে। আমরা জানি সেখানে দুইভাগে বিভক্ত হয়ে যাবে এবং কোনো না কোনো জোটে আমাদের থাকতে হবে। কেউই এককভাবে ৩০০ আসনে যোগ্য মনোনয়ন দিতে পারবে না। সকলকে শরিক দল হিসেবে আসন ভাগাভাগি করতে হবে। সেক্ষেত্রে আমরা মহাজোট গঠন করে আওয়ামী লীগের সঙ্গে থেকে নির্বাচন করব। তবে তিনশো আসনেই নির্বাচনের জাতীয় পার্টি প্রস্তুতি আছে বলেও জনান জিএম কাদের।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

রাজনীতি বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৪৩ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই