তারিখ : ১৮ অক্টোবর ২০১৮, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকায় ইউপি চেয়ারম্যান রানী’র বিরুদ্ধে অভিযোগ

ভালুকায় ইউপি চেয়ারম্যান রানী’র বিরুদ্ধে বিদুৎ সংযোগ দেয়ার নামে অর্থ আদায় অভিযোগ
[ভালুকা ডট কম : ১৬ সেপ্টেম্বর]
ভালুকা উপজেলার ২ নং মেদুয়ারী ইউনিয়নের সোয়াইল গ্রামে বাংলাদেশ বিদুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) এর বিদুৎ সংযোগ দেয়ার নাম করে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের জন্য ইউপি চেয়ারম্যান জেসমীন নাহার রানীর বিরুদ্ধে উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ পত্র দায়ের করেছেন গ্রামবাসী।

অভিযোগে প্রকাশ ঐ ইউনিয়নের সোয়াইল গ্রামে ৫১টি বাড়িতে পিডিবি’র বিদুৎ সংযোগ দেয়ার নাম করে ইতি মধ্যে ৫১ জনের কাছ থেকে ১৫ হাজার টাকা করে নেয়ার পর দির্ঘদিন তালবাহানা করে আসছে। কিছু দিন পূর্বে এলাকাবাসীর আবেদনের প্রেক্ষিতে পল্লী বিদুৎ সমিতি ময়মনসিংহ-২ ঐ গ্রামে সমিতির সংযোগ লাইন স্থাপন করে। ইউপি চেয়ারম্যান পল্লী বিদুৎ সমিতি’র বিদুৎ গ্রাহকদের মাঝে সংযোগ স্থাপনে বাধা প্রদান করে এবং ঐ ৫১ জনের কাছে আরও ১০ হাজার করে টাকা দাবী করে ইউপি চেয়ারম্যান পিডিবি’র বিদুৎ সংযোগ নেয়ার জন্য গ্রাম বাসীর প্রতি আহ্বান জানান। এতে গ্রামবাসী ক্ষোদ্ধ হয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বরাররে ১৬, সেপ্টেম্বর ২০১৮ একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগের প্রাপ্তি স্বীকার করে উপজেলা চেয়ারম্যানের অফিস সহকারী জুয়েল আহম্মেদ বলেন চেয়ারম্যান সাহেব ঢাকায় থাকায় বিষয়টি অবহিত করা যায়নি।এ ব্যাপারে মেদুয়ারী ইউপি চেয়ারম্যান জেসমিন নাহার রানী অভিযোগ প্রসঙ্গে বলেন, ইহা মিথ্যা বৃত্তিহীন। তিনি বলেন, অভিযোগকারী হাফিজুল ইসলাম এক জন মাদক সেবী ও মাদক বিক্রেতা কিছুদিন পূর্বে মাদক মামলায় হাফিজুল হাজত খেটেছে।

বিষয়টি সম্পর্কে জানতে ঐ গ্রামে সরেজমিনে গ্রামবাসীর সাথে আলোচনা করে জানা যায় চেয়ারমেনের হাফিজুলের বিরুদ্ধে আনিত মাদকের অভিযোগটি সম্পূর্ন মিথ্যা বিত্তিহীন। অন্যায় ভাবে মাদক মামলায় হাফিজুলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদিকে হাফিজুল বলেন, আমি কোন মাদক দূরের কথা এমনকি আমি কোন   বিড়ি-সিগারেট পাণ করিনি। আমার রক্ত পরীক্ষা করা হলে ইউপি চেয়ারম্যান যে অন্যায় ভাবে হাজত খাটিয়েছে তা প্রমানিত হবে।

গ্রামবাসী বলেন একজন ইউপি চেয়ারম্যানের এধরনের কর্মকান্ড সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষোন্ন করার সামীল। বিষয়টি সম্পর্কে উপজেলা বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সভাপতি হাজী আব্দুর রহমান হাফিজুলকে ফাউন্ডেশনের উপজেলা শাখার একজন সদস্য দাবী করে বলেন সে কোন দিন মাদক সেবন করেনি। তিনি বলেন একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তার মাধ্যমে সরেজমিনে প্রয়োজনীয় তদন্ত করা হলে ইউপি চেয়ারম্যানের আনিত অভিযোগটি প্রমানিত হবে। এদিকে গ্রামবাসী ঘোষ, দূর্নিতিমুক্ত ভাবে দ্রুত বিদুৎ সংযোগ পাওয়ার জোরদাবী জানিয়েছেন।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৩৪ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই