তারিখ : ১৭ আগস্ট ২০১৮, শুক্রবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকার নেতা মোস্তফার বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন

ভালুকার নেতা মোস্তফার বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন
[ভালুকা ডট কম : ০৬ জুলাই]
ভালুকার পুরুড়া গ্রামের মধ্যবিত্ত মুসলিম পরিবারে পিতা মো: আব্দুল মোতালেব ও মাতা মোছা: উছেরা খাতুনের ঘরে ১ নভেম্বর ১৯৫৫ খ্রিস্টাব্দে জন্ম হয় আজকের ভালুকার উন্নয়নের রুপকার ভালুকার নেতা ক্ষেত একমাত্র রাজনীতিবিদ যে তৃণমূল কর্মীদের ধারা নেতা উপাধিতে ভূষিত নেতা মোস্তফার। সম্পুন্ন নাম আলহাজ্ব মো: গোলাম মোস্তফা (নেতা মোস্তফা)।

পিতা মাতার দুই ছেলে দুই মেয়ের মধ্যে সবার বড় মো: গোলাম মোস্তফা পরে ভাই মোঃ মোস্তফা কামাল এবং বোন মোছা: রাশিদা বেগম,মোছা: খালেদা আক্তার।এই রাজনীতিকের শিক্ষাজীবনের হাতেখড়ি ষাটের দশকের দিকে পুরুড়া মডেল প্রাইমারি স্কুল থেকে এরপর ৭২ সনে ভালুকার ঐতিহ্যবাহী ভালুকা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এস,এস,সি এবং ভালুকা ডিগ্রী কলেজ থেকে ৭৪/৭৬ বর্ষে ইন্টারমিডিয়েট এরপর রাজধানীর জগন্নাথ কলেজ (বর্তমান বিশ্ববিদ্যালয়) থেকে বি,এ সম্পন্ন করেন। তিনি বর্তমানে ভালুকা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আ’লীগের সদস্য ।

এই নেতার রাজনৈতিক জীবনের শুরু হাইস্কুল জীবন থেকেই সেই ১৯৬৯ সনে তৎকালীন স্বাধীন বাংলা ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের ১১ দফা আন্দোলনে সক্রিয় ভাবে অংশ গ্রহনকারী গোলাম মোস্তফা ১৯৭০ থেকে ৭৩ সাল পর্যন্ত তৎকালীন ভালুকা থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক। ১৯৭৪ থেকে ৭৬ সাল পর্যন্ত থানা ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭৭ থেকে ৯৬ সাল পর্যন্ত উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের একাদিকবার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭৮ থেকে ৯৭ সাল পর্যন্ত তিনি ভালুকা উপজেলা আওয়ামীলীগের একাদিকবার সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন।

বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী ভালুকা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আ’লীগের সদস্য গোলাম মোস্তফা আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ১৫৬ ময়মনসিংহ-১১ ভালুকা নির্বাচনী এলাকায় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী। তিনি ইতি মধ্যে ভালুকা পৌরসভা সহ উপজেলার ১১ টি ইউনিয়নের ১১০ টি গ্রামে গনসংযোগ করে দলীয় নেতাকর্মী ও এলাকাবাসীর সর্বাত্নক সহযোগীতা ও দোয়া প্রার্থনা করেছেন।

তিনি সম্প্রতি ভালুকা ডট কম কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে উপজেলা চেয়ারম্যান অবস্থায় বিগত সারে ৪ বছরে ভালুকা উপজেলার বিভিন্ন উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে বলেন, ১১০ টি গ্রামে হেয়ারিং বনের মাধ্যমে ১৭০ কি: মি: সড়ক নির্মান করে উপজেলা সদরের সাথে সড়ক যোগাযোগ স্থান করেছেন। তিনি বলেন এই সময়ে উপজেলার প্রায় শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্টান, মসজিদ, মাদরাসায় ভবন নির্মান,বেঞ্চ সরবারহ সহ শিক্ষা উপকরন বিতরন করেছেন। এছাড়াও ভালুকা প্রেস ক্লাব সহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্টানে আর্থিক সাহায্য করে এলাকাবাসীর কাছে ভালুকা উন্নয়নের রুপকার হিসাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হয়েছেন। এই সব উন্নয়ন মূলক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করতে উপজেলা পরিষদের অর্থায়নে প্রায় সারে ৯ কোটি টাকা ব্যায় করেছেন। উপজেলা ১১০ টি গ্রামের সাথে সড়ক যোগাযোগ স্থাপন করে তিনি এলাকাবাসীর কাছে প্রসংশিত হয়েছেন। যা তার নির্বাচনী কার্যক্রমে অবদান রাখতে সক্ষম।

বর্তমানে উপজেলা আওয়ামীলীগের ২য় বার সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালনকারী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তাফা বলেন বর্তমানে অনেক মুখ চেনা জাতীয়তাবাদী আওয়ামীলীগার সেজে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করছে যা দলীয় নেতা কর্মীরা ইতি মধ্যে প্রত্যাখান করেছন। তিনি বলেন ত্যাগীনেতা কর্মীদেরকেই আ’লীগের মনোনয়ন দিবেন বলে দলীয় প্রধান দেশ রত্ন প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতি মধ্যে ঘোষনা করেছেন। প্রধান মন্ত্রীর ঘোষনা অনুযায়ী আমি ছাত্র জীবন থেকে আজকের আওয়ামীলীগের নেতা হিসাবে দলের মনোনয়ন আশা করতেই পারি, আমার দীর্ঘ ৪৬ বছরের রাজনৈতিক জীবনে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সাথে কোন দিন বেইমানী করিনী কাজেই এই আসনে আমি দলের মনোনয়ন পাওয়ার যোগ্য প্রার্থী।

নেতা মোস্তফা আরো জানান, ভালুকা উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও মাদরাসার পরিচালনা কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। এছাড়াও একাধিক কলেজ, স্কুল ও মাদরাসার সহ-সভাপতি ও সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ময়মনসিংহ জেলা রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির আজীবন সদস্য তিনি,তিনি পবিত্র হজ্ব এবং একাদিকবার ওমরা হজ্ব পালন করেছেন। তিনি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হিসাবে উন্নয়ন ও প্রশাসনিক অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য ইতি মধ্যে সরকারী ভাবে ভারত, নেদারলেন্ড, বেলজিয়াম, রোক্সেনবাগ ও কাতারের স্থানীয় সকরার ব্যবস্থার উপর বিভিন্ন কার্যক্রম সফলতার সাথে পরিদর্শন করেন। তিনি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পূর্বে বর্তমান সরকারের বাস্তবায়নকৃত ও গৃহিত উন্নয়ন প্রকল্পগুলীর তৃনমূল পর্যায়ে তুলে ধরার জন্য দলীয় নেতা কমীদের প্রতি আহ্বান জানান এবং সকলের দোয়া ও সহযোগীতা কামনা করেন।

নেতা মোস্তফা বর্তমানে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন - পুরুড়া দাখিল মাদ্রাসা, বাদে পুরুড়া বালিকা দাখিল মাদরাসা,টুন্ডা পাড়া উচ্চ বিদ্যালয়, মল্লিকবাড়ী পূর্ব পাড়া বালিকা দাখিল মাদ্রাসা, বরাইদ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়,পুরুড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এছাড়াও তিনি শাপলা বিদ্যানিকেতন ভালুকার পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি, পুরুড়া জুনিয়ার মডেল স্কুল এর পরিচালনা কমিটির দাতা সদস্য, ভালুকা ডিগ্রী কলেজ, এ্যাপোলো ইনস্টিটিউট অব কম্পিউটার, ভালুকা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সম্মানিত সদস্য তিনি।

এই বর্ণাঢ্য রাজনীতিবিদের বর্তমান ঠিকানা -সি- ৭৮, ৩ নং ওয়ার্ড কলেজপাড়া ভালুকা পৌরসভা ।  স্থায়ী ঠিকানা -গ্রাম পুরুড়া, ডাকঘর পুরুড়া, উপজেলা ভালুকা, জেলাঃ ময়মনসিংহ ।  শিক্ষাগত যোগ্যতা- বি এ, ধর্ম- ইসলাম সুন্নি, বৈবাহিক অবস্থা- বিবাহিত,পারিবারিক ভাবে ১৯৭৩ সনে ভালুকার স্বনামধন্য মুসলিম পরিবারের মেয়ে মোছা: নাজমা খানম কে বিয়ে করেন,পারিবারিক জীবনে দুই কন্যা মনিদিল আফরোজ, মনিদিল মাহফুজ ও এক ছেলে মোঃ গোলাম আমীর ফয়সাল (সোহাগ)এর জনক তিনি।#


 






সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ব্যাক্তিত্ব বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫২৪ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই